যে ৫ কারণে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ৩ দেশ

জানেন কি, বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ কোনটি? অনেকের মনেই এই প্রশ্নটি হয়তো এসেছে কখনো না কখনো। সম্প্রতি এই সংক্রান্ত একটি তালিকা প্রকাশ করেছে ইউএস নিউজ। তাদের এই তালিকা তৈরি করেছে বিএভি গ্রুপ। এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে একজন নেতা, অর্থনৈতিক-রাজনৈতিক প্রভাব, শক্তিশালী আন্তর্জাতিক জোট এবং শক্তিশালী সেনাবাহিনী- এই পাঁচটি বিষয়ের উপর নির্ভর করে।

মার্চ মাসের জিডিপি বিবেচনা করে অর্থনীতি ও জনসংখ্যাকেও র‍্যাঙ্কিংয়ে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই তালিকায় উল্লিখিত দেশগুলো কেবল যে শক্তিশালী দেশ হিসেবেই শীর্ষস্থান লাভ করেছে তা নয়, ভ্রমণের ক্ষেত্রেও এদের নাম রয়েছে শীর্ষে। আমেরিকা থেকে শুরু করে চীন, জার্মানি প্রত্যেকেই একটি স্থান দখল করে নিয়েছে।

চলুন দেখে নেওয়া যাক এর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ কোনটি-

আমেরিকা
এই তালিকায় ২৭.৯৭ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি নিয়ে শীর্ষে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আমেরিকার মোট জনসংখ্যা ৩৩৯.৯ মিলিয়ন। আমেরিকায় এমন অনেক জায়গা আছে, যেগুলো সৌন্দর্যের দিক দিয়ে অন্য যে কোনো দেশের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে। আমেরিকার সেরা ৫টি স্থান- ফ্রেমন্ট ট্রল- সিয়াটেল, ওয়াশিংটন, এলাকা ৫১- লস ভেগাস, নেভাদা, কার হেঞ্জ- ইংল্যান্ডের স্টোনহেঞ্জ, রেসট্র্যাক- ক্যালিফোর্নিয়া-নেভাদা, প্রবাল দুর্গ- ফ্লোরিডা

চীন
তালিকার দুই নম্বরে রয়েছে চীন, যার অর্থনীতি ১৮.৫৬ ট্রিলিয়ন ডলার এবং চীনের জনসংখ্যা ১.৪২ বিলিয়ন। প্রযুক্তির দিক থেকে চীন অন্য সব দেশের চেয়ে অনেক উপরে এবং এখানে দেখার মতো এমন জায়গা রয়েছে যা আপনাকে মুগ্ধ করবে। চীনের শীর্ষ ৫টি স্থান- চীনের মহাপ্রাচীর, তিব্বত, বেইজিং, সাংহাই, দ্য সিল্ক রুট।

রাশিয়া
১.৯০ ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতি এবং ১৪৪ মিলিয়ন জনসংখ্যা নিয়ে রাশিয়া রয়েছে শক্তিশালী দেশের তৃতীয় স্থানে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে রাশিয়া সম্পর্কে বিশ্ববাসীর সবচেয়ে বেশি আগ্রহ জন্মেছে। রাশিয়ার শীর্ষ ৫ স্থান-বৈকাল হ্রদ, মস্কো, সেন্ট, পিটার্সবার্গ, আলতাই, সোচি।

৪.৭০ ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতি এবং ৮৩.২ মিলিয়ন জনসংখ্যা নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে জার্মানি। ৩.৫৯ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি সহ ৬৭.৭ মিলিয়ন জনসংখ্যা নিয়ে ব্রিটেন রয়েছে পঞ্চম স্থানে। এই তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া, এর অর্থনীতি ১.৭৮ ট্রিলিয়ন ডলার এবং জনসংখ্যা ৫১.৭ মিলিয়ন।