ষষ্ঠ শ্রেণীতে ফেল, হার না মনের জোরে কোচিং ছাড়াই প্রথমবারের চেষ্টায় UPSC-তে সফল রুক্মিণী রিয়া

চ্ছাশক্তি এবং মনের মধ্যে অদম্য জেদ থাকলে, কোনোকিছুই অসম্ভব নয়। এ কথাটি এরআগে বহুবার প্রমাণিত করেছেন অনেকেই। আর এবার সেই তালিকাতেই নাম লেখালেন, IAS অফিসার রুক্মিণী রিয়া (Rukmani Riar)। আজকের এই প্রতিবেদনে তাঁর এই লড়াকু জীবন কাহিনী তুলে ধরা হলো, যা রীতিমতো অনুপ্রেরণা যোগাবে হাজার হাজার পড়ুয়ার।

এখনও এমন অনেক পড়ুয়া আছে, যারা পরীক্ষায় ফেল করে ভীষণ মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। আর পরীক্ষার ফলাফলের কাগজে একটি লাল কালির দাগই যথেষ্ট একজন পড়ুয়াকে হতাশার দিকে ঠেলে দেওয়ার জন্য। আবার এমন পড়ুয়ার মধ্যে অনেকেই আছে, যারা এই পরিস্থিতিকে সঙ্গে নিয়েই পুনরায় আবার নতুন করে শুরু করেন পড়াশোনা। এবং তাদের মতোই একজন হলেন, রুক্মিণী রিয়া। একটা সময় তাঁকে শিক্ষকদের নানান বঞ্চনা ও তাঁর সহপাঠীদের নানা কটুক্তির মুখে পড়তে হয়। আর সেই সময় ভয় পেয়ে হেরে না গিয়ে জীবনে কিছু একটা করে দেখানোর এমন অদম্য জেদ তাঁকে চেপে ধরে বসে।

তিনি জন্মগ্রহণ করেন পঞ্জাবের গুরুদাসপুরে। এবং সেখান থেকেই শুরু তাঁর প্রাথমিক শিক্ষা লাভ। এরপর ডালহৌসির স্যাক্রেড স্কুলে চতুর্থ শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত পড়ার পর, তিনি অমৃতসরের গুরু নানক দেব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সামাজিক বিজ্ঞান নিয়ে স্নাতক অর্জন করেছিলেন। এবং পরবর্তীতে তিনি মুম্বাইয়ের টাটা ইনস্টিটিউট থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন। তারপর মহীশুরের অশোদা এবং মুম্বাইতে অন্নপূর্ণা মহিলা মন্ডল NGO থেকে ইন্টার্নশিপ করেন। সেই সঙ্গে চালিয়ে গেছেন, UPSC পরীক্ষার প্রস্তুতি।

এরপর 2011 সালে প্রথমবার সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় সফলতা অর্জন করেন। এবং তাঁর IAS হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হয়। কোনোরকম কোচিং ছাড়াই সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টা ও অদম্য জেদের জন্য দেশের সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষায় সফলতা অর্জন করেন রুক্মিণী রিয়া। সেই সঙ্গে সমগ্র দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন। আর তাই তাঁর এই লড়াইয়ের কাহিনী অনুপ্রেরণা যোগাতে সাহায্য করবে এমন বহু পড়ুয়াকে।